ভাষাসমূহ

ভিওসি কী?

বাড়িতে রঙ করা হলে, আপনি সব সময় একটা গন্ধ পান। কি? তাই তো? বাড়ি সুন্দর হওয়া দেখতে দেখতে যে বাইপ্রোডাক্টটি আপনার প্রশ্বাসে মিশছে, তাই হল ভিওসি। 

ভিওসি হল কার্বন বাহিত একটি যৌগ যা অতি দ্রুত বাতাসে মিশে যায়। বাতাসে মিশে আন্যান্য পদার্থের সংস্পর্শে এসে সেটি ওজোন উৎপন্ন করে যা বায়ু দূষণ এবং একাধিক অসুস্থতার কারণ। যেমন শ্বাসকষ্ট, মাথার যন্ত্রণা, চোখ ও নাক জ্বালা ইত্যাদি। এমনও কিছু ভিওসি আছে যার প্রভাবে কিডনি ও লিভারের সমস্যা, এমনকি ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে।

রঙ যখন শুকোতে থাকে তখন এই ক্ষতিকারক ভিওসি খুব উচ্চমাত্রায় বাতাসে মিশতে থাকে। সাধারণত ইনডোর ভিওসির মাত্রা আউটডোর ভিওসির থেকে ১০ গুণ উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন হয় যা রঙ করার ঠিক পরেই ১০০০ গুণ বেশি উচ্চক্ষমতাতেও পৌঁছতে পারে। প্রচলিত ধারণা অনুযায়ী রঙ করার সময় ও  রঙের কাজ শেষ হওয়ার ঠিক পরেই ভিওসির মাত্রা সবচেয়ে বেশি থাকে, কিন্তু পরে দেখা গিয়েছে বেশ কয়েক বছর ধরে ভিওসি একই রকম ক্ষমতাসম্পন্ন রয়েছে। ঘটনা হল, ১ বছরে মাত্র ৫০% ভিওসি বাতাসে মিশতে পারে।   

খুব দুশ্চিন্তায় পড়ে গেলেন? নেরোল্যাক তো এই সমস্যার সমাধান করে ফেলেছে। ২০১১ সালে নেরোল্যাক ভারতে প্রথম প্রায় ভিওসি-মুক্ত বা জিরো ভিওসি  প্রিমিয়াম ইন্টেরিয়র এবং এক্সটেরিয়র ইমালশন এবং তার সঙ্গে কম ভিওসিযুক্ত ইন্টেরিয়র এবং এক্সটেরিয়র ইমালশন আবিষ্কার করে  যা অতি দ্রূত বিপুল জনপ্রিয়তা লাভ করে।  হেলদি হোম কন্সেপ্ট মেনে খুব কম মাত্রার ভিওসি থাকার দরুন নেরোল্যাকের রঙ অত্যন্ত নিরাপদ, তা ঘরে হোক বা বাইরে।

SEND US YOUR QUERIES

আপনার প্রশ্ন পাঠান