ভাষাসমূহ

নেরোল্যাকে কর্মজীবন

মানবসম্পদ কৌশল ও সাংগঠনিক সম্পাদন

আমাদের কর্মীরাই আমাদের সংস্থার হৃদস্পন্দন। তাই, আমরা সবসময় চেষ্টা করি থাকে একটি বিশ্বাস, ভরসা ও স্বচ্ছতাপূর্ণ কাজের পরিবেশ তৈরি করতে।

কানসাই নেরোল্যাকের মানবসম্পদ দপ্তর একাধিক ব্যবস্থা, পদ্ধতি ও কার্যকলাপের আয়োজন করেছে, যা অ্যাপ্রেইজাল ও কর্মচারী নিয়োগ পদ্ধতিকে আরও কার্যকরী করে তুলতে সাহায্য করে।

কর্ম পদ্ধতি

আরএমএস :কেএনপিএল-এ রিক্রুটমেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম চালু করা হয় কর্মচারীদের সমস্যামুক্ত পরিষেবা দান ও সেটিকে উন্নয়নের উদ্দেশে, যা এমপ্লয়ি সেলফ সার্ভিস পোর্টালের শ্রমশক্তির চাহিদার কথা মাথায় রেখে এন্ড-টু-এন্ড পরিষেবা দান করে থাকে। এর মধ্যে রয়েছে অনলাইন শ্রমশক্তির অনুরোধ, ভেকেন্সি শেয়ারিং, পোজিশন স্ট্যাটাস ট্র্যাকিং ও নবনিযুক্ত কর্মীদের নিয়গপত্র প্রদান।


পিএমএস :
অনলাইন পারফর্ম্যান্স ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (পিএমএস) হল একটি ওয়েব ভিত্তিক ব্যবস্থা যা অ্যাপ্রেইজাল প্রাপক ও অ্যাপ্রেইজারের জন্য সংশ্লিষ্ট ত্রৈমাসিক ও বাৎসরিক পদ্ধতি হিসাব রক্ষাকে আরও সহজ করে তোলে। অনলাইন পিএমএস পারফর্ম্যান্সের মূল্যায়ন ও নিরীক্ষণ সম্পর্কে কর্মচারীদেরকে ধারণা দেয়। এর মাধ্যমে কর্মচারীরা তাদের কর্মক্ষমতা, দুর্বলতা ও উন্নয়ন সংক্রান্ত রেটিং ও মূল্যায়ন দেখতে পারেন এবং উন্নয়ন ও প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত প্রয়জনীয়তাগুলি নিয়ে আলোচনার সুযোগ পান।


পারফর্ম্যান্স ডাইরি: পারফর্ম্যান্স ডাইরি হল এমন এক টুল যা কর্মচারীদের কর্ম-সংক্রান্ত কার্যকলাপের তথ্যাবলী লিখে রাখতে ব্যবহার হয়। এই তথ্যগুলির মধ্যে থাকতে পারে প্রতিদিনের কাজের বিবরণ অথবা এমন সব কৃতিত্ব ও কর্মকাণ্ড যা একজন কর্মচারীর বর্তমান বছরের কেআরএ-এর সঙ্গে সম্পর্কিত।

বোল্ট: একটি যুগান্তকারী, অনলাইন পরীক্ষা ব্যবস্থা, এটি কেবলমাত্র একটি সাধারণ অনলাইন পরীক্ষা নয়, এবং সঙ্গত কারণেই এটির নামকরণ করা হয়েছে বি.ও.এল.টি. বা বিয়ন্ড অনলাইন টেস্টিং। বোল্ট-এর লক্ষ্য হল সংস্থার সমস্ত কর্মচারীদের পারদর্শিতার মান উন্নয়ন করার পাশাপাশি তাদের পেশাগত অগ্রগতি, অ্যাপ্রেইজাল ও ক্রস ফাংশনাল মুভমেন্টের মূল্যায়ন করা।

কাজের চর্চা

ক্যাম্পাস কোলাবরেশন:ম্যানেজমেন্ট ও ইঞ্জিনিয়ারিংয়েরদুনিয়ার নবীন প্রতিভাদেরকে নামজাদা ম্যানেজমেন্ট ও ইঞ্জিনিয়ারিং/টেকনিকাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে নিয়োগ করা হয়। এই নবনিযুক্তদেরকে স্বল্পমেয়াদী ইন্টার্নশিপ অ্যাসাইনমেন্ট, সেমিনার ও ক্যাম্পাস ইনিশিয়েটিভের মাধ্যমে শিল্পক্ষেত্রে স্বাগত জানানো হয়। নেরোল্যাকে আমরা ছাত্রদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধি করার মাধ্যমে সমাজে অবদান রাখার বিষয়ে বদ্ধ পরিকর।